ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি মুহাম্মদ সামাদ। ফাইল ছবি

ডাকসু নির্বাচন বাতিলের সুযোগ নেই: প্রো-ভিসি

ডাকসুর ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর।

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৯ আপডেট: ১২ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৯
প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৯ আপডেট: ১২ মার্চ ২০১৯, ১৬:২৯


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি মুহাম্মদ সামাদ। ফাইল ছবি

(প্রিয়.কম) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রো-ভিসি) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ বলেছেন, ‘ডাকসু নির্বাচন বাতিলের সুযোগ নেই।’

১২ মার্চ, মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

উপ-উপাচার্য বলেন, ‘নির্বাচন হয়ে গেছে। ফলাফলও ঘোষণা করা হয়েছে। আমাদের গণতান্ত্রিক রীতি-নীতি ও ডাকসুর গঠনতন্ত্র—এগুলো নিয়ে চলতে হবে।’

এদিকে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের নেতা নুরুল হক নুরকে জালিয়াতি করে ডাকসুর ভিপি পদে জয়ী করা হয়েছে অভিযোগ করে ওই পদে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানাচ্ছেন ছাত্রলীগ। ভিপি পদে পরাজয় মানতে না পেরে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

অপরদিকে বাম জোট, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের দুই জোটসহ ভোট বর্জনকারী প্যানেলগুলোর ডাকে মঙ্গলবার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস বর্জন কর্মসূচি চলছে।

গতকাল রাতে ভিপি পদে বিজয়ী হিসেবে নুরুল হকের নাম ঘোষণার পর থেকে ক্ষোভে ফেটে পড়ে ছাত্রলীগ। রাতে ফল ঘোষণার সময় সিনেট ভবনের চারপাশে বিক্ষোভ করতে থাকেন নেতাকর্মীরা। সেখানে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে উপাচার্য অনেকটা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। পরে তিনি বাসায় ফিরে যান।

সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে নির্বাচিত হয়েছেন ছাত্রলীগের গোলাম রাব্বানী। সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) হয়েছেন সাদ্দাম হোসাইন। ডাকসুর মোট ২৫টি পদের মধ্যে ২৩টিতেই ছাত্রলীগের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন।

অন্যদিকে পূর্ণাঙ্গ ফল ঘোষণার আগেই গতকাল দুপুরে তা বর্জন করে আবার ভোট গ্রহণের দাবি জানায় ছাত্রলীগ ছাড়া অন্য সব সংগঠন।

সোমবার দিবাগত রাতে ফলাফল ঘোষণায় দেখা যায়, ডাকসুর ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুর। এরপরই ভিপি পদের ফল প্রত্যাখ্যান করে ছাত্রলীগ। ওই পদে আবার নির্বাচনের দাবিতে বিক্ষোভ করেন তারা।

অধ্যাপক সামাদ বলেন, ‘ডাকসু নির্বাচন যেভাবে সম্পন্ন হয়েছে, সারা দেশের মানুষ মিডিয়ার মাধ্যমে দেখেছে। আপনারা নিজেরা সাক্ষী। একটি হলে সামান্য অনিয়ম হয়েছে, আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়েছি। আরেকটা হলে কোনো অনিয়ম হয়নি, সেখানে হাঙ্গামা হয়েছে, আমার ভাষায়। কাজেই ডাকসু নির্বাচন যারা বর্জন করেছে, সেটা তাদের নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি, নিজস্ব ব্যাপার। বর্জন করার বা এখন বাতিলের দাবি—এটা করার সুযোগ আছে বলে আমার মনে হয় না।’

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...