প্রতীকী ছবি

টেলিটক নিজেই মানছে না বিটিআরসির নির্দেশনা

ইন্টারনেট প্যাকেজের বাইরে ‘পে পার ইউজ’-এর ক্ষেত্রে পাঁচ টাকার বেশি অতিক্রান্ত হলে ইন্টারনেট বন্ধের নির্দেশনা থাকলেও তা না মেনে গ্রাহকের পকেট কাটছে এই অপারেটরটি।

রাকিবুল হাসান
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:১৯ আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:২২
প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:১৯ আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:২২


প্রতীকী ছবি

(প্রিয়.কম) রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটককে উন্নত গ্রাহকসেবা দিতে বেশ কয়েকবার নির্দেশনা দিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। নির্দেশনা অনুযায়ী, মোবাইলে ইন্টারনেট সেবায় স্বল্পমূল্যে প্যাকেজ নিয়ে আসলেও ‘পে পার ইউজ’ (যতটুকু ব্যবহার ততটুকু বিল) প্রক্রিয়ায় ইন্টারনেট ব্যবহারে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) নির্দেশনাই মানছে না টেলিটক

ইন্টারনেট প্যাকেজের বাইরে ‘পে পার ইউজ’-এর ক্ষেত্রে পাঁচ টাকার বেশি অতিক্রান্ত হলে (ইন্টারনেট প্যাকেজ, বান্ডেল/অফার ওটিপি-ইন বা সাবস্ক্রাইব করা ছাড়া) ইন্টারনেট বন্ধের নির্দেশনা থাকলেও তা না মেনে গ্রাহকের পকেট কাটছে এই অপারেটরটি।

এমন ভুক্তভোগী পাঠকদের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি যাচাই করে প্রিয়.কম। ফলাফলে এমন অভিযোগের সত্যতা মিলেছে।

দেখা গেছে, ‘পে পার ইউজ’-এর মাধ্যমে গ্রাহক যতক্ষণ ইন্টারনেট চালাচ্ছেন ততক্ষণ গ্রাহকের ব্যালেন্স থেকে টাকা কেটে নেওয়া হচ্ছে।

যা ছিল বিটিআরসির নির্দেশনায়

চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি প্যাকেজ/অফার/বান্ডেল সম্পর্কিত একটি নির্দেশনা দেয় বিটিআরসি।

গ্রাহক স্বার্থ রক্ষার্থে বিটিআরসির এই নির্দেশনার ‘খ’ নম্বর ক্রমিকে জানানো হয়, একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ পাঁচ টাকা ‘পে পার ইউজ’ (যতটুকু ব্যবহার ততটুকু বিল) প্রক্রিয়ায় ইন্টারনেট ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন। নির্ধারিত সীমা (৫ টাকা) অতিক্রম করলে গ্রাহককে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য ইন্টারনেট প্যাকেজ/বান্ডেল/অফার ওটিপি-ইন বা সাবস্ক্রাইব করতে হবে।

ওই ক্রমিকে আরও বলা হয়, এই সংক্রান্ত পূর্বের নির্দেশনাটি বাতিল করা হলো।

‘গ’ নম্বর ক্রমিকে বলা হয়, অটো রিনিউ ফিচার চালুকৃত ইন্টারনেট/প্যাকেজ/বান্ডেল/অফারসমূহ ক্রয়কৃত ইন্টারনেট ভলিউম অথবা মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়া মাত্রই প্যাকেজ/বান্ডেল/অফারটি পুনরায় চালু হয়ে যাবে। যদি গ্রাহক ‘অটো রিনিউ ফিচার’ চালু না করে থাকে সেক্ষেত্রে ‘খ’ নং নির্দেশনাটি প্রযোজ্য হবে।

টেলিটক সিম ব্যবহারে যা মিলল

ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য একটি টেলিটক সিম ব্যবহার করা হয়। সিমটিতে ব্যবহার করা হতো এক জিবির ইন্টারনেট প্যাকেজ। এই প্যাকেজটি ‘অটো রিনিউ’ ফিচারের আওতার বাইরে ছিল।

যাচাইয়ের আগে সিমটিতে থাকা চার এমবি ইন্টারনেট শেষ করা হয়। এমবি শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে টেলিটক থেকে একটি মেসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয়, ব্যবহারকারীর ইন্টারনেট প্যাকেজ শেষ হয়েছে এবং তিনি ‘পে পার ইউজ’-এর আওতায় রয়েছেন।

এ সময় মোবাইলের সেলুলর ইন্টারনেট কানেকশন বন্ধ করে ব্যালেন্স চেক করে ফের ইন্টারনেট কানেকশন চালু করা হয়। ‘পে পার ইউজ’ ফিচারের মাধ্যমে ইন্টারনেট চালানোর প্রায় এক মিনিট পর ইন্টারনেট কানেকশন বন্ধ করে ব্যালেন্স চেক করা হয়। দেখা যায়, নির্ধারিত সীমা পাঁচ টাকার বেশি ব্যালেন্স কেটে নিয়েছে অপারেটরটি।

কী বলছে টেলিটক

এ বিষয়ে কথা বলতে টেলিটকের নীতিনির্ধারক পর্যায়ে কর্মরত এক কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। ‘পে পার ইউজ’-এর ক্ষেত্রে বিটিআরসির দেওয়া নির্দেশনা না মানার বিষয়টি তাকে অবহিত করলে ওই কর্মকর্তা বিষ্ময় প্রকাশ করেন।

তিনি দাবি করেন, এমনটি হওয়ার কথা না। রাষ্ট্রীয় অপারেটর বিটিআরসির নির্দেশনা পালন করছে না, এমন তথ্য ঠিক না।

বিষয়টি খতিয়ে দেখার পাশাপাশি যাচাই সাপেক্ষে পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও জানান তিনি।

প্রিয় প্রযুক্তি/রিমন

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

এক নজরে রেডমি ৭

প্রিয় ৭ ঘণ্টা, ৫৯ মিনিট আগে

loading ...