সঞ্জয় দত্ত ও মাধুরী দীক্ষিত। ছবি: সংগৃহীত

‘মাধুরীর সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে বিব্রত বোধ করছিলাম’

এতগুলো বিতর্কিত অধ্যায় কেটে যাওয়ার পর ফের একবার জুটি বাধলেন মাধুরী ও সঞ্জয়। সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল, এতে কখনো অস্বস্তিবোধ হয়নি?

শামীমা সীমা
সহ সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:২৩ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:২৫
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:২৩ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:২৫


সঞ্জয় দত্ত ও মাধুরী দীক্ষিত। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) একসময় প্রেমের সম্পর্ক ছিল সঞ্জয় দত্তমাধুরী দীক্ষিতের মধ্যে। একসঙ্গে বেশ কিছু সিনেমায় অভিনয়ের সুবাদেই পরস্পরের কাছাকাছি আসেন তারা। কিন্তু সেই প্রেমে ইতি টানা হয়ে গেছে প্রায় ২৫ বছর আগে। নব্বইয়ের দশকের এ প্রেমের জুটি ভেঙে যাওয়ার পর একসঙ্গে আর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াননি তারা। কিন্তু তাদের আবার এক করলেন অভিষেক বর্মন ও করণ জোহর, সৌজন্যে ‘কলঙ্ক’ সিনেমা।

এতগুলো বিতর্কিত অধ্যায় কেটে যাওয়ার পর ফের একবার জুটি বাধলেন মাধুরী ও সঞ্জয়। সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল, এতে কখনো অস্বস্তিবোধ হয়নি? জবাবে নায়িকা জানান, কোনো অস্বস্তিই হয়নি একসঙ্গে কাজ করার সময়। সঞ্জয়ের সঙ্গে কাজ করতে পেরে তার বেশ ভালো লেগেছে।

এদিকে একই প্রসঙ্গে সঞ্জয় দত্ত বলেন, ‘মাধুরীর সঙ্গে কাজ করাটা দারুণ অভিজ্ঞতা। আমি একটু বিব্রত বোধ করতাম। মাধুরীই বরং কাজটা অনেক সহজ করে দিয়েছিল। আমরা শুটিং বিরতিতে নিজেদের সন্তানদের নিয়েও কথা বলতাম। আমি তো শাহরান আর ইকরার সঙ্গে মাধুরীর আলাপ করাতে ওদের সেটেও নিয়ে গিয়েছিলাম।’

সঞ্জয় দত্ত ও মাধুরী দীক্ষিত। ছবি: সংগৃহীত

আগামী ১৭ এপ্রিল মুক্তি পাচ্ছে সঞ্জয়-মাধুরীর ‘কলঙ্ক’। জোরেশোরে চলছে সিনেমার প্রচারণা। বরুণ ধাওয়ান, আলিয়া ভাট, সোনাক্ষী সিনহা ও আদিত্য রয় কাপুরের পাশাপাশি সিনেমার প্রচারের সূত্রে প্রায়ই এক ফ্রেমে ধরা দিচ্ছেন সাবেক এ প্রেমিক যুগল। ‘কলঙ্ক’ সিনেমায় প্রথমে মাধুরীর জায়গায় অভিনয় করার কথা ছিল শ্রীদেবীর। তার প্রয়াণের পর মাধুরী অভিনয় করেন এই চরিত্রে।

‘কলঙ্ক’ সিনেমার ভাবনা মূলত ছিল করণ জোহরের বাবা প্রয়াত যশ জোহরের। সঞ্জয় জানিয়েছেন, ১৯৯৩ সালে ‘গুমরাহ’ সিনেমার শুটিংয়ের সময়ই এই গল্পের কথা তাকে বলেছিলেন যশ জোহর। সঞ্জয় বলেন, ‘গুমরাহের সময় যশ জোহর আমাকে গল্পটা বলেছিলেন। ধর্ম প্রোডাকশন তো পরিবারের মতো, ফলে করণ যখন প্রস্তাব দেয়, না বলার কোনো প্রশ্নই ছিল না। আরও একটা ব্যাপার, এ সিনেমাতে আমার চরিত্রের নাম বলরাজ। আমার বাবা সুনীল দত্তের আসল নাম ছিল এটাই। দেশ বিভক্তির সময় বাবাও পাকিস্তান থেকে এসেছিলেন। ফলে মানসিক ভাবে এ ছবির সঙ্গে প্রথম থেকেই যুক্ত ছিলাম।’

সূত্র: ফিল্মিবিট

প্রিয় বিনোদন/আশরাফ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...