ইমরান তাহির ও তার স্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত

ভারতীয় মডেলকে ভালোবেসে পাকিস্তান ছেড়েছিলেন এই তারকা ক্রিকেটার

কেননা পাকিস্তান দেশটা যে দিলরুবার একেবারেই পছন্দের ছিল না। বাধা ছিল ধর্মও।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ১১:২৯ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৩১
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ১১:২৯ আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৩১


ইমরান তাহির ও তার স্ত্রী। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বলা হয়ে থাকে, প্রেম-ভালোবাসা অন্ধ করে দেয় মানুষকে। করে তোলে দুঃসাহসী। জাত-পাত ভুলিয়ে দেয়। শুধু তাই নয়, প্রেম-ভালোবাসা মানে না কোনো বয়স, কোনো নিয়ম, কোনো বাধা, সীমানা, বর্ণ কিংবা ধর্ম। সমাজ যতই বাঁকা চোখে তাকাক, যতই কটূ কথা শোনাক না কেন প্রেম চলে নিজ গতিতেই।

প্রেম যে আসলেই কোনো বাধা মানে না তার জলন্ত প্রমাণ বলা যায় ইমরান তাহির ও দিলরুবা সুমাইয়াকে। ভারত-পাকিস্তানের মতো দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশের সীমানার উত্তাপও বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি তাদের ভালোবাসার। শুধু তাই নয়, ভারতীয় বংশদ্ভুত হিন্দু ধর্মালম্বী সুমাইয়ার জন্য পাকিস্তানই ছেড়েছেন মুসলিম ইমরান।

১৯৮৮ সালের কথা। তখন পাকিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকা যান ইমরান তাহির। ভারতীয় বংশদ্ভুত দিলরুবা থাকতেন সেখানেই। হুট করে দেখা হয় এ দুজনের। দিলরুবাকে দেখেই ভালো লেগে যায় তাহিরের। যদিও সিরিজ শেষে দেশে ফিরে আসতে হয় ইমরান তাহিরকে।

দেশে ফিরেও ইমরান যেন বুঁদ হয়ে ছিলেন দিলরুবাতেই। বারবার মনে পড়ে যাচ্ছিল তার কথা। তখনই বুঝেছিলেন, প্রেমে পড়েছেন ইমরান। তবে তখন তো আর বর্তমান সময়ের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে যুগ ছিল না। অনেক কষ্ট করেই যোগাড় করেছিলেন দিলরুবার ফোন নম্বর।

স্ত্রী দিলরুবা সুমাইয়ার সঙ্গে ইমরান তাহির। ছবি: সংগৃহীত

ফোনে কথা বলতেন ইমরান-দিলরুবা। মাঝে মধ্যেই দিলরুবার সঙ্গে দেখা করার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা ছুটে গেছেন ইমরান। তবে সুমাইয়া কিন্তু একেবারেই ভাবেননি ইমরানের সঙ্গে তার প্রেম কিংবা বিয়ে হবে। কেননা পাকিস্তান দেশটা যে সুমাইয়ার একেবারেই পছন্দের ছিল না। বাধা ছিল ধর্মও।

কেননা ইমরান ইসলাম ধর্মের হলেও দিলরুবা ছিলেন হিন্দু। কিন্তু ওই যে বলা হয়, প্রেম মানে না কোনো ধর্ম। তাই তো দিলরুবা প্রেমে পড়ে গেলেন ইমরানের। তবে সমস্যা ছিল অন্য আরেকটি বিষয়। আর তা হলো দেশ ছাড়তে নারাজ ছিলেন জেদি সুমাইয়া। তাই ইমরান বেছে নিলেন অন্য পথ।

ইমরান তাহির-দিলরুবা সুমাইয়া, সন্তান জিবরানের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার খেলা দেখছেন সুমাইয়া। ছবি: সংগৃহীত

২০০৬ সালে পাকিস্তান ছাড়লেন ইমরান। কারণ সুমাইয়ার শর্তই যে, নিজের দেশে থাকতে পারবেন না ইমরান, ভালবাসলে স্ত্রীর দেশেই থাকতে হবে তাকে। প্রেমিকা দিলরুবাকে দক্ষিণ আফ্রিকায় এসে বিয়ে করলেন ইমরান। বিয়ের পর মডেলিং ছেড়ে দিলেন সুমাইয়া। ঘর বাঁধলেন। কিন্তু তাহির কী করবেন? তিনি যে ক্রিকেট পাগল।

নিজের যোগ্যতায় দক্ষিণ আফ্রিকায় ঘরোয়া ক্রিকেটে তখন খেলতে শুরু করলেন ইমরান। ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে খেলতে ২০১১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একদিনের ম্যাচে খেলেন ইমরান। একই বছরের নভেম্বরে জায়গা করে নেন টেস্ট দলেও।

প্রেমের জন্য ধর্ম-সীমানা পেরিয়ে সর্বস্ব ত্যাগ করা ইমরান তাহির বর্তমান সময়ে সীমিত ওভারের খেলায় অন্যতম সেরা লেগ স্পিনারদের একজন। এ বিষয়ে ইমরান তাহিরের ভাষ্য, ‘ভালোবাসা যায়, কিন্তু ভালোবাসাকে ধরে রাখাটাই চ্যালেঞ্জ। সুমাইয়া পাশে থাকায় আমি সেটাই পেরেছিলাম।’

আপাতত দুজনেই সুখে আছেন। তাদের ঘর আলো করে এসেছে সন্তান জিবরান। এই মুহূর্তে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলতে স্ত্রী-সন্তানসহ ভারতে অবস্থান করছেন চেন্নাই সুপার কিংসের এই প্রোটিয়া ক্রিকেটার।

প্রিয় খেলা/আশরাফ

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

loading ...