চাকরির ইন্টারভিউয়ে দেরি করাটাকে ভালো চোখে দেখা হয় না। ছবি: সংগৃহীত

চাকরির ইন্টারভিউয়ে দেরি হয়ে গেছে?

এমন অবস্থায় কী করতে পারেন আপনি?

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৯ আপডেট: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৯
প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৯ আপডেট: ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৩৯


চাকরির ইন্টারভিউয়ে দেরি করাটাকে ভালো চোখে দেখা হয় না। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) খারাপ সংবাদটা জেনে রাখুন প্রথমে। চাকরির ইন্টারভিউয়ে দেরি হওয়াটা ভালো চোখে দেখা হয় না কখনোই। ৮৫০ জন হায়ারিং ম্যানেজারের ওপর করা একটি গবেষণায় দেখা যায়, ৯৩ শতাংশই মনে করেন দেরি করে ইন্টারভিউয়ে এলে সে ব্যক্তির চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

সম্ভব হলে ইন্টারভিউয়ের ১৫ মিনিট আগে উপস্থিত হওয়াই ভালো। কিন্তু জীবনে কোনো কিছুই নিশ্চিত নয়। আপনার বাস দেরি করতে পারে, রাস্তায় জ্যাম থাকতে পারে মাত্রাতিরিক্ত, আপনি রাস্তা হারিয়ে ফেলতে পারেন, আপনার বাচ্চা অসুস্থ হয়ে পড়তে পারে—এসব কারণে চাকরির ইন্টারভিউয়ে দেরি হয়ে যায়। এসব ক্ষেত্রে কী করবেন, জেনে নিন—

১) দেরি হয়ে যাচ্ছে তা জানান

আপনি বুঝতে পারছেন আপনার দেরি হবে। তখনই ফোন করে জানিয়ে দিন যে আপনি সময়মতো যেতে পারছেন না এবং কী রকম দেরি হবে সেটাও জানিয়ে দিন। টেক্সট বা মেইল করার তুলনায় ফোন করে জানানোটাই ভালো। এতে তাদের সময় নষ্ট হবে না এবং আপনি সময়মতো পৌঁছাবেন এমন আশা থাকবে না। কখন পৌঁছাবেন তা জানতে পারলে তাদের সুবিধা হবে। কোনো কিছু না জানিয়ে দেরি করাটা একেবারেই অনুচিত।

২) দায়িত্ব নিন

আপনি দেরি করেছেন, এর দোষটা অন্যদের ওপর চাপাবেন না। বরং ভুল স্বীকার করুন এবং তাদেরকে জানান যে আপনি দেরি করার জন্য দুঃখিত। অজুহাত দেওয়াটা বরং তাদেরকে আরও বিরক্ত করে তুলবে।

৩) ইন্টারভিউ বাতিল করা হতে পারে

অনেক সময় আপনি বেশি দেরি করে ফেললে ইন্টারভিউ সেদিন না নিয়ে বরং অন্য একদিন নেওয়ার কথা বলা হতে পারে, এমনকি আপনার ইন্টারভিউ না নেওয়া হতে পারে। এটা মেনে নিতে হবে আপনাকে।  আপনি এতে বিরক্তি বা অসন্তোষ প্রকাশ করলে বরং আপনার চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা কমে যেতে পারে।

৪) দেরি হওয়ার কথা বারবার তুলবেন না

দেরির ব্যাপারটাকে নিয়ে বারবার কথা বললে আপনার ইন্টারভিউয়ে অন্য কথা বলা, এমনকি আপনার ভালো দিকগুলো তুলে ধরার কোনো সুযোগ পাবেন না। তাই প্রথমে একবার সরি বলে নিন। এরপর অজুহাত নিয়ে আর কথা না টানাই ভালো। এরপর ইন্টারভিউয়ের ফলোআপ ই-মেইলে আরেকবার দুঃখ প্রকাশ করতে পারেন।

সূত্র: হাফিংটন পোস্ট

প্রিয় লাইফ/আজাদ চৌধুরী