মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত

যারা হারল তারা পরাজিত নয়: মমতা

তৃণমূলের এই নেত্রী বলেছিলেন ৪২-এ ৪২। দেশ থেকে মোদি সরকারকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য আহ্বান জানান বার বার।

আশরাফ ইসলাম
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৩ মে ২০১৯, ১৫:৩৬ আপডেট: ২৩ মে ২০১৯, ১৫:৩৬
প্রকাশিত: ২৩ মে ২০১৯, ১৫:৩৬ আপডেট: ২৩ মে ২০১৯, ১৫:৩৬


মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে টুইট করেছেন। সে টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘জয়ীদের শুভেচ্ছা। যারা হেরেছেন তারা প্রকৃতপক্ষে পরাজিত নন। আমাদের সম্পূর্ণ পর্যালোচনা করতে হবে। তারপরই আমরা মানুষের রায় নিয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গি ভাগ করে নেব। কিন্তু আগে গণনা সম্পূর্ণ হোক ও প্রদত্ত ভোটের সঙ্গে ভোটার ভেরিফায়েড পেপার অডিট ট্রেইলিং (ভিভিপ্যাট) মিলিয়ে দেখার পক্রিয়া শেষ হোক।’

তৃণমূলের এই নেত্রী বলেছিলেন ৪২-এ ৪২। দেশ থেকে মোদি সরকারকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য আহ্বান জানান বার বার। প্রচারের সময়ও তুলোধনা করেছেন ভারতীয় জনতা পার্টিকে (বিজেপি)। বলেছিলেন, ‘দিল্লির ম্যানশনে আর ফিরবে না মোদি সরকার। রাজ্যে খাতা খোলা সম্ভব হবে না তাদের।’

কিন্তু বাস্তবে এর পুরো উল্টো। বুথ ফেরত সমীক্ষার সঙ্গে মিলে যাচ্ছে মানুষের রায়। তৃণমূলে সার্বিক আস্থা নয়। মানুষ বিরোধী হিসেবে বেছে নিয়েছেন বিজেপিকে। এখনো পর্যন্ত ভোটের গণনার প্রবণতা ১৯ কেন্দ্রে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। যা বহুক্ষেত্রে বুথ ফেরত সমীক্ষা রিপোর্টের থেকেও বেশি।

২০০৯ লোকসভা ভোটে রাজ্যে ১৫ আসন জিতেছিল তৃণমূল। শুরু হয়েছিল রাজ্যপাটে রাজনৈতিকভাবে ‘পরিবর্তেন যাত্রা’। সময় গড়িয়েছে ১০ বছর। কত কি বদলে গেছে ততদিনে। এরপর ২০১৩-এর পঞ্চায়েত, ২০১৪- এর লোকসভা, ২০১৬-এর বিধানসভার ভোটে ব্যাপক পরিমাণ ভোট পেয়ে ক্ষমতা দখল করে তৃণমূল।

২০১৯, রাজ্যে গেরুয়া শিবিরের হাওয়া। তারই প্রতিফলন ইভিএমে পড়েছে, তা স্পষ্ট। মমতার ঘরে যে থাবা বসিয়েছেন মোদি-শাহ জুটি।৷ তা পরিষ্কার। এই প্রেক্ষাপটে মমতার টুইট বেশ ইঙ্গিতবাহী বলে মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

প্রিয় সংবাদ/রুহুল

পাঠকের মন্তব্য(০)

মন্তব্য করতে করুন


আরো পড়ুন

বিমানে উঠে ঘুম, এরপর...

প্রিয় ৬ ঘণ্টা, ৪৭ মিনিট আগে

loading ...