তনুশ্রী ও নানা পাটেকর। ছবি: সংগৃহীত

প্রমাণের অভাব, মুক্তি পেলেন তনুশ্রীর অভিযুক্তরা

বলিউডের নামি অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে মি-টু মামলায় প্রমাণের অভাবে ‘বি সামারি’ রিপোর্ট পেশ করেছে পুলিশ।

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ০৯ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৫ আপডেট: ০৯ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৫
প্রকাশিত: ০৯ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৫ আপডেট: ০৯ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৫


তনুশ্রী ও নানা পাটেকর। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) বলিউডের নামি অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে ‘মি-টু’ মামলায় প্রমাণের অভাবে ‘বি সামারি’ রিপোর্ট পেশ করেছে পুলিশ।

গত ১২ জুন মুম্বাইয়ের ওশিওয়ারা থানার পুলিশ মুম্বাইয়ের আন্ধেরির মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেটকে এই ‘বি সামারি’ রিপোর্ট জমা দেয়।

এই রিপোর্টের অর্থ পুলিশ অভিযুক্তের বিপক্ষে কোনো প্রমাণ জোগাড় করতে পারেনি; যার ওপর ভিত্তি করে তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়। তবে অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত পুলিশের এই রিপোর্ট প্রত্যাখান করেছেন।

শনিবার তনুশ্রীর আইনজীবী জানান, তারা পুলিশের রিপোর্টের বিরোধিতা করছে। তিনি বলেন, ‘আদালত আমাদের কিছুদিন সময় দিয়েছে। আমরা পুলিশের বি সামারি রিপোর্টের বিরুদ্ধে হলফনামা পেশ করব। ৭ সেপ্টেম্বর মামলার শুনানির দিন ধার্য হয়েছে।’

২০১৮ অক্টাবর মাসে নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তার অভিযোগ আনেন তনুশ্রী দত্ত। তার অভিযোগ ছিল ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির একটি গানের শুটিংয়ের সময় তনুশ্রীকে আপত্তিকরভাবে স্পর্শ করার চেষ্টা করেন। এরপরই তিনি শুটিং সেট ছেড়ে বেরিয়ে যান। 

তনুশ্রীর অভিযোগের ভিত্তিতেই নানা পাটেকর ছাড়াও নাচের কোরিওগ্রাফার গনেশ আচারিয়া, ছবির প্রযোজক সামি সিদ্দিকী ও রাকেশ সারাঙ্গের ওপর অভিযোগ দায়ের হয়েছিল। এই বি সামারি রিপোর্টের ভিত্তিতে সব অভিযোগ থেকে মুক্তি পান তারা।

ভারতীয় দন্ড বিধির ৩৫৪ ও ৫০৯ ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয় তাদের ওপর। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফ্তার করা হয়নি।

প্রিয় বিনোদন/আশরাফ