ফাইনালের আগে ফটোসেশনে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান আন্ত-সাংসদীয় ক্রিকেট দল। ছবি: সংগৃহীত

আন্ত-সাংসদীয় বিশ্বকাপে পাকিস্তান-ইংল্যান্ড দলে খেললেন পেশাদার ক্রিকেটাররা!

আন্ত-সাংসদীয় বিশ্বকাপের ফাইনালে বাংলাদেশের বিপক্ষে ছয় জন বহিরাগত ক্রিকেটার নিয়ে মাঠে নামে পাকিস্তান।

সৌরভ মাহমুদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৬ আপডেট: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৬
প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৬ আপডেট: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৫:০৬


ফাইনালের আগে ফটোসেশনে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান আন্ত-সাংসদীয় ক্রিকেট দল। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ক্রিকেট খেলুড়ে ৮ দেশের সংসদ সদস্যদের নিয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ১২তম আসর চলাকালীন ইংল্যান্ডে আয়োজন করা হয়েছিল আন্ত-সাংসদীয় বিশ্বকাপ।

নিয়ম অনুযায়ী কেবল মাত্র সংসদ সদস্যরাই খেলতে পারবেন এই বিশ্বকাপে। সংসদীয় দল দেশকে প্রতিনিধিত্ব করবেন ব্যাপারটি গুরুত্ব দিয়ে এমপির পাশাপাশি তিন মন্ত্রীকে নিয়ে ইংল্যান্ডে যায় বাংলাদেশ দল। অথচ টুর্নামেন্টে শুরু হতেই দেখা গেল পাকিস্তান ও আফগানিস্তান দল প্রায় এমপিশূন্য। বাইরের পেশাদার ক্রিকেটারদের খেলাচ্ছে তারা। এমনকি এই তালিকায় রয়েছে বিশ্বকাপের আয়োজক ইংল্যান্ডও!

শুক্রবার প্রথম সেমিফাইনাল খেলে পাকিস্তান ও আফগানিস্তান। দুই দলেই বাইরের খেলোয়াড় ছিল বেশি। বাংলাদেশ আপত্তি জানায় সঙ্গে সঙ্গে। এ নিয়ে পাকিস্তান সাংসদদের সঙ্গে কিছুটা বাকবিতণ্ডও হয়েছে নাঈমুর রহমান দুর্জয়, জুনাইদ আহমেদ পলক, মোহাম্মদ জাহিদ আহসান রাসেলদের।

বাংলাদেশ দল আপত্তি জানালে পাকিস্তানি সাংসদরা উল্টো প্রশ্ন করে প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান আপত্তি তোলেনি, তোমরা আপত্তি কেন তুলছ?  তখন বাংলাদেশ দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এটা তো নিয়মে নেই।

আয়োজকরা অবশ্য কিছুই যাচাই-বাছাই করেনি। যে যার মতো করে নামে খেলিয়েছে। যা নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হলে আয়োজক কর্তৃপক্ষ জানায়, অতিথি ক্রিকেটার হিসেবে খেলানো যাবে। বাধ্য হয়ে বাংলাদেশও বাইরে থেকে খেলিয়েছে দুই ক্রিকেটারকে। যার একজন এনামুল হক জুনিয়র। যিনি বাংলাদেশের জার্সি গায়ে টেস্ট ও ওয়ানডে খেলেছেন।

পাকিস্তান আন্ত-সাংসদীয় ক্রিকেট দল। ছবি: সংগৃহীত

আন্ত-সাংসদীয় বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ-পাকিস্তান। এই ম্যাচেও পাকিস্তান সাংসদীয় ক্রিকেট দলের হয়ে ৬ জন পেশাদার ক্রিকেটার খেলতে নামেন। যার ফলে আর কুলিয়ে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ দল। ৯ উইকেটের হারে রানার্স আপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় বাংলাদেশ আন্ত-সাংসদীয় ক্রিকেট দলকে।

ম্যাচ শেষে অবশ্য হতাশা গোপন রাখতে পারেননি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ শাহরিয়ার আলম এমপি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের অফিশিয়াল আইডি থেকে এ নিয়ে একটি পোস্ট দেন তিনি। সেখানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লিখেছেন, ‘কাউন্টি ক্রিকেট খেলে এইরকম ছয়জনকে খেলাইসে। আমরা কি আর তাদের সাথে পারি! রানার্সআপই সই। আপনাদের শুভকামনার জন্য অনেক ধন্যবাদ।’

বাংলাদেশ সংসদীয় ক্রিকেট দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন নাঈমুর রহমান দুর্জয়। এ ছাড়া এই দলে খেলেছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

অন্য সংসদ সদস্যদের মধ্যে আছেন আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব (যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি), নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, নাহিম রাজ্জাক, মুজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন, শেখ তন্ময়, জুয়েল আরেং, আনোয়ারুল আবেদীন খান তুহিন, আহসান আদিলুর রহমান আদিল, ছোট মনির, সানোয়ার হোসেন, শফিকুল ইসলাম শিমুল, ফাহিম গোলন্দাজ বাবেল, মোহাম্মদ আয়েনউদ্দিন, শামীম হায়দার পাটোয়ারি, আনোয়ারুল আজীম আনার।

আন্তসংসদীয় ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া বিভিন্ন দেশের সংসদ সদস্যরা ১৪ জুলাই যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সঙ্গে বসে বিশ্বকাপ ফাইনাল উপভোগ করারও সুযোগ পাবেন।

প্রিয় খেলা/আশরাফ