বীরেন্দর শেবাগ ও তার স্ত্রী আরতি শেবাগ। ছবি: সংগৃহীত

প্রতারণার শিকার শেবাগের স্ত্রী

এবার শেবাগের স্ত্রী আরতি শেবাগও উঠে এসেছেন আলোচনায়। তবে সেটা ভিন্ন কারণে।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৮ আপডেট: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৮
প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৮ আপডেট: ১৩ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৮


বীরেন্দর শেবাগ ও তার স্ত্রী আরতি শেবাগ। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়েছেন ছয় বছরেরও বেশি সময় আগে। তবুও নিয়মিত আলোচনায় থাকেন বীরেন্দর শেবাগ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার সরব উপস্থিতি ও বিভিন্ন বিষয়ে মন্তব্য করে খবরের শিরোনাম হন ভারতের এই সাবেক ওপেনার।

এবার শেবাগের স্ত্রী আরতি শেবাগও উঠে এসেছেন আলোচনায়। তবে সেটা ভিন্ন কারণে। সম্প্রতি আর্থিক প্রতারণার শিকার হয়েছেন আরতি। অর্থের পরিমাণটাও বেশ বড়সড়।

শেবাগ-পত্নীর দাবি, তার স্বাক্ষর নকল করে ৪.৫ কোটি রুপি ধার নিয়েছেন ব্যবসায়িক অংশীদাররা। পরবর্তী সময়ে সে অর্থ আর পরিশোধ করেননি তারা। এই ঘটনায় বিব্রত হতে হচ্ছে আরতিকে। দিল্লি পুলিশের কাছে করা এফআইআরে এমন তথ্য জানিয়েছেন শেবাগের স্ত্রী।

আরতি জানান, রোহিত কক্করের ব্যবসায় অংশীদার ছিলেন তিনি। রোহিতের এই সংস্থাটির অফিস বিহারে। পরিকল্পনা করে তাকে প্রতারিত করেছেন রোহিত ও সেই সংস্থার আরও পাঁচ ব্যক্তি। রোহিতের আরও একটি সংস্থা আছে। তার অজান্তে সেই সংস্থার সঙ্গে তার নাম জড়ানো হয়েছে।

বীরেন্দর শেবাগের স্ত্রী আরতি শেবাগ। ছবি: সংগৃহীত

শেবাগের স্ত্রী আরও জানান, একটি সংস্থার কাছ থেকে প্রায় সাড়ে চার কোটি টাকা ধার নিয়েছে রোহিতের সংস্থা। কিন্তু ধার নেওয়ার নথিতে তার জাল স্বাক্ষর ব্যবহার করা হয়। এদিকে ধারের টাকা এখনো শোধ করেনি রোহিতের সংস্থাটি।

আরতির অভিযোগ, স্বাক্ষর নকল করে টাকা ধার নিয়ে শোধ না করায় তার ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। এজন্য দিল্লি পুলিশের কাছে রোহিত ও তার সংস্থার বিরুদ্ধে ৪২০ ধারায় মামলা করেছেন তিনি। অভিযোগ প্রমাণিত হলে দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ।

প্রিয় খেলা/রুহুল