স্পোর্টসম্যানশিপের অনন্য নজির স্থাপন করেছেন কুশল মেন্ডিস। ছবি: সংগৃহীত

আম্পায়ার দিলেন ‘নট আউট’, তবুও মাঠ ছাড়লেন মেন্ডিস

তৃতীয়বারও বেঁচে যেতে পারতেন মেন্ডিস। আম্পায়ার আউট না দেওয়ায় আনায়াসেই খেলা চালিয়ে যেতে পারতেন তিনি।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৬ জুলাই ২০১৯, ২০:৪১ আপডেট: ২৬ জুলাই ২০১৯, ২০:৪১
প্রকাশিত: ২৬ জুলাই ২০১৯, ২০:৪১ আপডেট: ২৬ জুলাই ২০১৯, ২০:৪১


স্পোর্টসম্যানশিপের অনন্য নজির স্থাপন করেছেন কুশল মেন্ডিস। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডের পুরো আলো একাই কেড়ে নিয়েছেন লাসিথ মালিঙ্গা। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন অভিজ্ঞ এই লঙ্কান পেসার। পুরো কলম্বোজুড়ে বইছে ‘মালিঙ্গা মালিঙ্গা’ রব। এমন ম্যাচেও নিজের দিকে আলো টানতে সক্ষম হয়েছেন কুশল মেন্ডিস। স্পোর্টসম্যানশিপের অনন্য নজির স্থাপন করে আলোচনায় উঠে এসেছেন ডানহাতি এই লঙ্কান ব্যাটসম্যান।

ঘটনা শ্রীলঙ্কার ইনিংসের ৩৪তম ওভারে। রুবেল হোসেনের করা শেষ বলটি কাট করতে গিয়েছিলেন মেন্ডিস। কিন্তু বলটি চলে যায় মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসে। কিন্তু বোলার কিংবা উইকেটরক্ষক- কারও পক্ষ থেকেই জোরালো আবেদন ছিল না। আম্পায়ার নিতিন মেননও আউট দেওয়ার কারণ খুঁজে না পাওয়ায় বিষয়টি আমলে নেননি।

বাংলাদেশের পক্ষ থেকেও অবশ্য কোনো আপত্তি ছিল না। মুশফিক, রুবেল, আম্পায়ার সবাই পরবর্তী ওভারের জন্য তৈরি হচ্ছিলেন। মুশফিক গেলেন হেলমেট নিতে, আর রুবেল গেলেন আম্পায়ারের কাছে রাখা ক্যাপ আনতে। ঠিক এমন সময় সবাইকে অবাক করে দিয়ে ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে যান মেন্ডিস। এরপর আস্তে আস্তে ড্রেসিংরুমের দিকে হাঁটতে শুরু করেন ৪৯ বলে ৪৩ রান করা ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

আম্পায়ার আউট না দিলেও মেন্ডিস ঠিকই টের পেয়েছিলেন বলটি তার ব্যাট ছুঁয়ে মুশফিকের গ্লাভসে জমা পড়েছে। টিভি রিপ্লেতেও তাই দেখা গেল। মুশফিকের গ্লাভসে যাওয়ার আগে বলটি আসলেই মেন্ডিসের ব্যাট স্পর্শ করে। স্পোর্টসম্যানশিপ দেখাতে গিয়ে অবশ্য হাফ সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি মেন্ডিসের। তবে ভক্ত-সমর্থক থেকে শুরু করে ক্রিকেটপ্রেমীদের মন জিতে নিয়েছেন এই লঙ্কান ক্রিকেটার।

এর আগে অবশ্য দুবার জীবন পান মেন্ডিস। তার মধ্যে একবার আম্পায়ারের ভুলে শেষ হতে পারত তার ইনিংস। শফিউল ইসলামের বলে কট বিহাইন্ডের আবেদনে সাড়া দিয়ে ফেলেছিলেন আম্পায়ার নিতিনই। কিন্তু রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান তিনি।

আরেকবার মাহমুদউল্লাহর সৌজন্যে ব্যক্তিগত ২৮ রানে জীবন পান এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। সৌম্য সরকারের বলে পরিষ্কার ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু অনেকখানি দৌড়ে এসে সেই ক্যাচ হাতে নিয়েও শেষ পর্যন্ত রাখতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ।

তৃতীয়বারও বেঁচে যেতে পারতেন মেন্ডিস। আম্পায়ার আউট না দেওয়ায় আনায়াসেই খেলা চালিয়ে যেতে পারতেন তিনি। ইনিংসের শুরুতে রিভিউ নষ্ট করা বাংলাদেশের হাতেও তাকে ফেরানোর কোনো পথ ছিল না। কিন্তু সততার অনন্য পরিচয় দিয়ে মেন্ডিস নিজেই ফিরে গেলেন সাজঘরে।

প্রিয় খেলা/কামরুল