লিটন কুমার দাস ও কনে দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিতা। ছবি: সংগৃহীত

বিয়ে করলেন লিটন দাস, আজ রাতেই বৌভাত

২৪টি বসন্ত একা পার করার পর জীবনের দ্বিতীয় ইনিংসে পা দিয়েছেন জাতীয় দলের এই তারকা ক্রিকেটার।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০১৯, ১৫:৪৯ আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৯, ১৫:৪৯
প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০১৯, ১৫:৪৯ আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৯, ১৫:৪৯


লিটন কুমার দাস ও কনে দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিতা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) পাত্রী এবং দিনক্ষণ আগে থেকেই ঠিক করা ছিল। বাকি ছিল শুধু সময়ের অপেক্ষা। অবশেষে মধুর সেই সময়টা এসে ধরা দিলো লিটন কুমার দাসের জীবনে। ২৪টি বসন্ত একা পার করার পর জীবনের দ্বিতীয় ইনিংসে পা দিয়েছেন জাতীয় দলের এই তারকা ক্রিকেটার।

পূর্বনির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী ২৮ জুলাই, রবিবার বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন লিটন। জাতীয় দলের ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের স্ত্রীর নাম দেবশ্রী বিশ্বাস সঞ্চিত। মা-বাবার পছন্দেই সঞ্চিতাকে বিয়ে করেছেন লিটন। দিনাজপুরের মেয়ে সঞ্চিতা রাজধানীর শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

রবিবার সকালের দিকে রাজধানীর মিরপুরে একটি কমিউনিটি সেন্টারে লিটনের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। এদিন রাতে সেখানেই তার বৌভাতের অনুষ্ঠান হবে। বিয়ের কারণে চলমান শ্রীলঙ্কা সিরিজের দলে নেই ডানহাতি এই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান। 

বিয়ে কিংবা বৌভাত অনুষ্ঠানে সতীর্থদের কাউকে সেভাবে পাচ্ছেন না লিটন। কেননা তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কায় অবস্থান করছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। এখানেই শেষ নয়। লিটনের বৌভাত অনুষ্ঠানের সময়ই লঙ্কানদের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলতে ব্যস্ত থাকবেন তামিম-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা।

এর আগে গেল ১৭ এপ্রিল জন্মস্থান দিনাজপুরে লিটনের আশীর্বাদ হয়। কনে পক্ষের বাড়ি গিয়ে আংটি পরিয়ে আশীর্বাদের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন লিটন ও তার পরিবারের সদস্যরা। আর্শীবাদে দুই পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। তখনই জানা গিয়েছিল, বিশ্বকাপের পরই বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন জাতীয় দলের ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

বিয়ের কারণে চলমান শ্রীলঙ্কা সিরিজে খেলছেন না লিটন। গেল ১১ জুলাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে ছুটির জন্য আবেদন করেন তিনি। আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত বোর্ডের কাছ থেকে ছুটি নিয়েছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। এদিকে গেল ২৬ জুলাই থেকে শুরু হওয়া বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শেষ হবে ৩১ জুলাই।

প্রিয় খেলা/আশরাফ