বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা। ছবি: সংগৃহীত

কোহলি-রোহিত দ্বন্দ্ব চরমে, ভেস্তে গেল শান্তি প্রস্তাব

কোহলি-রোহিতের মধ্যকার দ্বন্দ্ব এতটাই চরমে গিয়ে ঠেকেছে যে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের উদ্যোগ পর্যন্ত ভেস্তে দিয়েছেন এই দুই ক্রিকেটার।

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০১৯, ২২:৪৯ আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৯, ২২:৪৯
প্রকাশিত: ২৮ জুলাই ২০১৯, ২২:৪৯ আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৯, ২২:৪৯


বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হারের রেশ কাটতে না কাটতেই শোনা গিয়েছিল ভারতের ড্রেসিংরুমে ভাঙনের গুঞ্জন। সেই গুঞ্জনকে আরও উসকে দেন রোহিত শর্মা। দলের বাকি ক্রিকেটারদের রেখে একা দেশে ফেরেন ডানহাতি এই ভারতীয় ব্যাটসম্যান। সেটাও অনেকটা নিরবে-নিভৃতে।

কোহলি-রোহিতের মধ্যকার দ্বন্দ্ব নিয়ে পানি কম ঘোলা হয়নি। তবে দুই সতীর্থের এই দ্বন্দ্বকে হয়তো হালকাভাবেই নিয়েছিল বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)। কিন্তু সময় যত বেড়েছে, কোহলি-রোহিতের দূরত্ব ততই বেড়েছে।

বাধ্য হয়ে দ্বন্দ্ব মেটানোর উদ্যোগ নিতে হলো বিসিসিআইকে। কিন্তু সেই উদ্যোগও আলোর মুখ দেখেনি। কোহলি-রোহিতের মধ্যকার দ্বন্দ্ব এতটা চরমে গিয়ে ঠেকেছে যে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের উদ্যোগ পর্যন্ত ভেস্তে দিয়েছেন এই দুই ক্রিকেটার।

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের শুরু থেকে আলোচনায় ছিল ভারতের নাম। রীতিমতো ফেভারিট তকমা নিয়েই বিশ্বকাপের এবারের আসরের অংশ নিয়েছিল দলটি। মাঠের পারফরম্যান্সেও দেখা যাচ্ছিল সেই ছাপ। লিগ পর্বের মাত্র একটি ম্যাচ ছাড়া বাকি সবগুলোতেই জয়ের স্বাদ নিয়ে সেমিফাইনালে পা রাখে বিরাট কোহলির দল।

ধোনি-কোহলিদের এমন দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ভক্ত-সমর্থকরা ধরেই নিয়েছিলেন বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠছে ভারত। কিন্তু বিধি বাম! সেমিফাইনালেই পাল্টে যায় দৃশ্যপট। বিশ্বকাপের শুরু থেকে দুর্দান্ত খেলতে থাকা ভারতকে সেমিফাইনালে যেন খুঁজেই পাওয়া যায়নি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১৮ রানে হেরে শেষ চার থেকে বিদায় নেয় রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হারের রেশ কাটতে না কাটতেই প্রকাশ্যে আসে ভারতের ড্রেসিংরুমে ভাঙনের খবর। ভারতের বেশ কয়েটি সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, দল নির্বাচনে নেতিবাচক প্রভাব খাটান কোহলি। অধিনায়কের এই প্রভাব মোটেই সহ্য হয়নি সহ-অধিনায়ক রোহিতের।

এ নিয়ে দুটি গ্রুপ সৃষ্টি হয় ভারতের ড্রেসিংরুমে। এক অংশের নেতৃত্বে রয়েছেন কোহলি। অপর অংশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রোহিত। এরই মধ্যে কোহলি ও তার স্ত্রী আনুশকা শর্মাকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে আনফলো করে দ্বন্দ্বকে আরও উসকে দেন রোহিত শর্মা। রোহিতের স্ত্রী ঋতিকাও কোহলি-আনুশকাকে আনফলো করে দিয়েছেন। আর আনুশকাও রোহিত-ঋতিকাকে ফলো করেন না। কোহলি অবশ্য এখনো রোহিতকে ফলো করছেন।

এমন পরিস্থিতিতে নিজেদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব মিটিয়ে নিতে কোহলি-রোহিতকে অনুরোধ করা হয়েছিল বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে। কোহলি-রোহিতের যেকোনো একজনকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট দিয়ে বিবাদের খবরটি স্রেফ গুঞ্জন বলে অভিহিত করতে বলেছিলেন বিসিসিআইয়ের প্রশাসক কমিটির এক সদস্য। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটা করা হয়নি। সেই প্রস্তাবে সায় দেননি কোনো ক্রিকেটার।

প্রিয় খেলা/রুহুল