বেঁচে থাকার তাগিদে মরিয়া মানুষ নির্যাতনের ঝুঁকিতে

প্রথম আলো প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০২০, ২১:৩২

কর্মহীন অভিবাসী থেকে শুরু করে বিদ্যালয়ের বাইরে থাকা শিশুদের পর্যন্ত নিশানা বানাচ্ছে মানব পাচারকারীরা। আর এই কাজে তারা ব্যবহার করছে করোনাভাইরাস মহামারিকে। এ মন্তব্য করে জাতিসংঘের দুজন বিশেষজ্ঞ সতর্ক করে বলেছেন, কোভিড-১৯ এর প্রভাবে বিশ্বে অপরাধ আরও বেশি গোপনে সংঘটিত হচ্ছে।

এই বিশেষজ্ঞরা বলেন, করোনা মহামারিতে অর্থনৈতিক মন্দার জেরে অগণিত মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। বেঁচে থাকার তাগিদে তাঁরা এখন মরিয়া হয়ে উঠেছেন এবং রয়েছেন অপব্যবহার ও নির্যাতনের শিকার হওয়ার ঝুঁকিতে। এই পরিস্থিতিতে তাঁরা মানবপাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও সহায়তা পাওয়ার ক্ষেত্রে অন্যদের মনোযোগ থেকে দূরে থাকছেন। দাতা ও সাহায্য সংস্থাগুলোর সম্পদও ভিন্ন খাতে চলে যাচ্ছে।

জাতিসংঘের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী আনুমানিক আড়াই কোটি মানুষ শ্রম ও যৌন অপরাধ সংশ্লিষ্ট পাচারের শিকার। বর্তমান করোনাকালে তাঁদের সহায়তাদান সেবা থেমে যাওয়ায় ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার প্রচেষ্টা বাধাগ্রস্ত হওয়ায় আরও মানুষ পাচারকারীদের নিশানায় পড়তে পারে এমন উদ্বেগ বাড়ছে।
সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন
এই সম্পর্কিত

আরও