প্রিন্সেস ডায়ানার ভাইরাল হওয়া প্রতিকৃতি। ছবি: সংগৃহীত

এইডস রোগীর রক্তে আঁকা হলো প্রিন্সেস ডায়ানার ছবি!

ডায়ানার সেই বার্তাকে নতুনভাবে উপস্থাপন করতেই এই প্রতিকৃতি আঁকা হলো এইডস রোগীর রক্ত দিয়ে। ছবিটি আঁকা হয়েছে এইচআইভি পজিটিভ রক্ত আর হীরক চূর্ণ দিয়ে।

শামীমা সীমা
সহ সম্পাদক
প্রকাশিত: ২১ জুলাই ২০১৮, ১৫:০২ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৫:১৬
প্রকাশিত: ২১ জুলাই ২০১৮, ১৫:০২ আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৫:১৬


প্রিন্সেস ডায়ানার ভাইরাল হওয়া প্রতিকৃতি। ছবি: সংগৃহীত

(প্রিয়.কম) রাজপরিবারের বধূ প্রিন্সেস ডায়ানার পরিচয় নতুন করে দেওয়ার কিছু নেই। একাধারে তিনি যেমন চোখধাঁধানো সুন্দরী ছিলেন, অপরদিকে আর্তমানবতার সেবায়ও নিয়োজিত ছিলেন। তার ফ্যাশনের প্রশংসা আজও সবার অনুপ্রেরণা। সম্প্রতি তার একটি ছবি ভাইরাল হলো নেট দুনিয়ায়। ছবিটি সাধারণ মনে হলেও আসলে তা আঁকা হয়েছে একজন এইচআইভি পজিটিভ রোগীর রক্ত দিয়ে।

এইডস নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে এই উদ্যোগ নিয়েছেন এক শিল্পী। প্রিন্সেস ডায়ানা প্রথম নারী, যিনি কিনা হাত মিলিয়েছিলেন একজন এইডস রোগীর সঙ্গে। সেটি ১৯৮৭ সালের কথা। সেই ঘটনার ওপর ভিত্তি করে সাম্প্রতিক যুগের শিল্পী কোনোর কলিন্স একটি ছবি এঁকেছেন।

ডায়ানার সেই বার্তাকে নতুনভাবে উপস্থাপন করতেই এই প্রতিকৃতি আঁকা হলো এইডস রোগীর রক্ত দিয়ে। ছবিটি আঁকা হয়েছে এইচআইভি পজিটিভ রক্ত আর হীরক চূর্ণ দিয়ে। সেই ছবিটিই এখন ভাইরাল নেট দুনিয়ায়।

চিত্রশিল্পী কোনোর কলিন্স এইডস নিয়ে গতানুগতিক ধারণা ও কুসংস্কার পরিবর্তন করতেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন। তাই ছবি আঁকার জন্য এইডস আক্রান্ত মানুষের রক্তই বেছে নেন তিন।

ছবিটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পোস্ট করে শিল্পী কোনোর কলিন্স লিখেছেন, ‘যখন ডায়ানা এইচআইভি রোগীর সঙ্গে হাত মিলিয়েছিলেন, তখন পুরো বিশ্ব বিস্মিত হয়েছিল। বহু যুগ পর এইচআইভি নিয়ে কুসংস্কার এখনো বিদ্যমান। মানুষের জানা দরকার চুম্বনের মাধ্যমে এইডস ছড়ায় না।’

প্রিন্সেস ডায়ানা ব্রিটেনের রাজপরিবারের বধূ হলেও তার জন্ম, বেড়ে ওঠা—সবই নিতান্তই সাধারণ ছিল। রাজপরিবারের চার দেওয়াল কখনোই তাকে আটকে রাখতে পারেনি। রাজপরিবারের বধূ হলেও তিনি জীবনের বেশির ভাগ সময়ই কাটিয়েছেন জনসাধারণের মধ্যে।

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

প্রিয় জটিল/আজাদ চৌধুরী